পারফিউম ফ্যাক্টরী এলকোহল মুক্ত সুগন্ধির দুনিয়ায় পারফিউম ফ্যাক্টরি আপনার জন্য একটি " ব্লাইন্ড বাই" প্লাটফর্ম "পারফিউম ফ্যাক্টরি"।
নরসিংদীর খবররায়পুরা

রায়পুরায় ছাত্রদল মনোনীত আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী মাহবুব আলম শাহীন !

বাণী রিপোর্ট : নরসিংদীর রায়পুরা পৌর সভার নির্বাচন আসন্ন। নির্বাচন কমিশন এখনো পর্যন্ত নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা না করলেও পৌর নির্বাচনের জোয়ারে ভাসছে রায়পুরা পৌরবাসী। শুরু হয়েছে ক্ষমতাশীন আওয়ামীলীগ সহ অন্যান্য দলের প্রার্থীদের মেয়র ও কাউন্সিলর পদে নির্বাচনের প্রস্ততি। ইতোমধ্যে আওয়ামীলীগের দলীয় মেয়র পদে ৪জন প্রার্থী নির্বাচন করে নৌকা প্রতীকের সম্ভাব্য প্রার্থীদের তালিকা কেন্দ্রীয় চুড়ান্ত মনোনয়নের জন্য সুপারিশ করে পাঠিয়েছেন রায়পুরা উপজেলা আওয়ামীলীগ। দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করলেও বর্তমান মেয়র রায়পুরা পৌর আওয়ামলীগের সাধারণ সম্পাদক মো: জামাল মোল্লাকে প্রার্থী বাছাইয়ের তালিকা থেকে বাদ দেয়া হয়েছে।

প্রায় ৫ বছর যাবত পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি পদ থেকে স্বেচ্ছায় পদত্যাগকারী নেতা মাহবুব আলম শাহীন বিএনপি’র অংগ সংগঠন ছাত্রদল নেতাকে সাথে নিয়ে দলীয় কার্যালয়ে এসে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেন। আর এই পদত্যাগী নেতা মাহবুবুব আলম শাহীন এর নাম বাছাই তালিকায় কেন্দ্রীয় মনোনয়ন এর জন্য সুপারিশ করায় দলের ভিতর ও বাহিরে তীব্র সমালোচনা চলছে । এ বিষয়টি নিয়ে বেশ কয়েকদিন ধরে রায়পুরা পৌর এলাকাসহ উপজেলা ব্যাপী আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে। বিশেষ করে পদত্যাগ করেও নিজেকে দলীয় নেতা দাবী করা এবং ছাত্রদল নেতাকে নিয়ে মনোয়ন পত্র সংগ্রহ করায় সর্বমহলে ব্যাপক সমালোচনা চলছে। এদিকে আবার আলোচনা হচ্ছে, রায়পুরায় ছাত্রদল মনোনীত আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী মাহবুব আলম শাহীন ! রায়পুরা আওয়ামী লীগ কী এতই জন সংকটে পড়েছে যে অন্য দলের নেতা-কর্মীদের নিয়ে এসে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করতে হবে? মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে হয়ত পদত্যাগী নেতা শাহীনকে মনোনয়নের জন্য সুপারিশ করা হয়ে থাকতে পারে।

The Daily Narsingdir Bani

জানা যায়, রায়পুরা পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে গত ৭ ডিসেম্বর রায়পুরা উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয় হতে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহাবুব আলম শাহীন। এসময় দলীয় নেতা কর্মী সমর্থকসহ তার সাথে ছিলেন রায়পুরা কলেজ শাখা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক মতিউর রহমান মতি। ছাত্রদল নেতাকে সাথে নিয়ে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের বিষয়ে পুরো পৌর এলাকা জুড়ে তিনি বেশ সমালোচিত হচ্ছেন। কেউ কেউ বলছেন মুজিব আদর্শের কেউ এ কাজ করতে পারে না। আবার কেউ কেউ বলছেন, অন্য দলের হলেও কারো সমর্থক হতে বাঁধা নেই। এমন আলোচনা বর্তমানে “টক অব দ্যা রায়পুরা”

দলীয় সূত্রে জানা যায়, রায়পুরা পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা না হলেও দলীয় সাংগঠনিক কার্যক্রম আগেভাগেই গুছিয়ে নিতে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মাঝে দলীয় ফরম বিতরণ শুরু করে উপজেলা আওয়ামীলীগ। মেয়র পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করতে ক্ষমতাশীন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়ে দলীয় ফরম সংগ্রহ করেছিল ৭ জন । তারা হলেন, রায়পুরা পৌরসভার বর্তমান মেয়র জামাল মোল্লা, রায়পুরা পৌর আওয়ামী লীগের পদত্যাগপ্রাপ্ত সভাপতি মাহাবুব আলম শাহীন, রায়পুরা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মিলন মাস্টার, রায়পুরা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তাজ তাহমিনা মানিক, পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, রায়পুরা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক এ.কে.এম মহিউদ্দিন, রায়পুরা কলেজের সাবেক ভিপি মোনায়েম খন্দকারের পক্ষে তার ভাই শফিকুল ইসলাম। মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে শুধু মাত্র একজন ছাড়া বাকী ৬ জনই দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে রায়পুরা উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয় হতে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন।

তাদের মধ্যে ৪ জনের নাম কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান আ-লীগের সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মো.আফজাল হোসেন। দলীয় মনোনয়ন পেতে কেন্দ্রে যাদের নাম প্রস্তাব করা হয়েছে তারা হলেন রায়পুরা পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদ থেকে পদত্যাগকারী নেতা মাহবুব আলম শাহীন, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মিলন মাস্টার, পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, উপজেলা আ-লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক এ.কে.এম মহিউদ্দিন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলা আওয়ামীলীগের একজন নেতা জানায়, মাহাবুব আলম শাহীন বর্তমানে দলীয় কোন পদে নেই। তিনি বিগত পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির সভাপতি ও পরিচালক পদে নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় সাংবিধানিক বাধ্য-বাধকতার কারণে দলীয় পদ থেকে স্বেচ্ছায় অব্যহতি নেন। দলের অন্যান্য মনোনয়ন প্রত্যাশীর মত মাহাবুব আলম শাহীনও সেদিন দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করতে নেতাকর্মী, সমর্থকদের সাথে নিয়ে আসেন। তাদের মধ্যে রায়পুরা কলেজ শাখা ছাত্রদলের মতিউর রহমান মতি অন্যতম।

মাহবুব আলম শাহীন এর পদত্যাগের বিষয়ে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন তৎকালীন রায়পুরা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রায়পুরা উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাদেক ও নরসিংদী পল্লী বিদ্যুৎ-২ এর সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার মোঃ ইউসুফ। তবে রায়পুরা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আফজাল হোসাইন পদত্যাগের বিষয়টি তার জানা নেই বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

এই ব্যাপারে জানার জন্য মাহবুব আলম শাহীনকে ফোন করে ও পাওয়া যায় নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button