নরসিংদীর খবরনরসিংদী সদর

হাজীপুর কাঠ বাজারে সরকারী সম্পত্তি অবৈধভাবে ভোগদখল করছে ইলিয়াছ মেম্বার

শেয়ার করুনঃ
The Daily Narsingdir Bani
হাজীপুর ইউপি’র ২নং ওয়ার্ড সদস্য ইলিয়াছ খান

বাণী রিপোর্ট : সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের পৃষ্ঠপোষক হিসেবে পরিচিত নরসংদী শহরতলী হাজীপুর ইউপি’র ২নং ওয়ার্ড সদস্য ইলিয়াছ খান। পেশীশক্তির বলে ইলিয়াছ মেম্বার সরকারী সম্পত্তি অবৈধভাবে ভোগদখল করছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, ইলিয়াছ মেম্বারের ছত্রছায়ায় রয়েছে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী বাহিনী। তাদের প্রভাবে সে হাজীপুর কাঠ বাজার এলাকায় সরকারী সম্পত্তি দখল করে সেখানে গড়ে তুলেছে হার্ডওয়ারের ব্যবসা। কয়েক বছর পূর্বে এলাকাবাসীর নিকট থেকে চাঁদা তুলে বেঙ্গল খেলার মাঠ সংলগ্ন সরকারী ভূমিতে ঘর নির্মাণ করে সেখানে কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির অফিসের সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে দখল করে নেয়। পরে সাইনবোর্ড সরিয়ে সেখানে সমিতির নামে অবৈধ সুদের ব্যবসা চালু করে সরকারী সম্পত্তি ভোগদখল করতে থাকে। এ সুদের ব্যবসার মাধ্যমে এলাকার নিন্ম আয়ের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষদের নি:স্ব করে দেয়া হচ্ছে।

অবৈধ ঋণদান সমিতির অফিসে আইপিএল, বিপিএল সহ টিভিতে ক্রিকেট খেলা দেখার নামে বসে জুয়ার আসর। এলাকার বিভিন্ন বয়সের লোকজন বিশেষ করে যুবকরা লক্ষ লক্ষ টাকার জুয়া খেলে সর্বশান্ত হচ্ছে সমিতির এ অফিসে।

স্থানীয় লোকজন আরএস ২৮৫দাগের ৯০ শতাংশ সরকারী সম্পত্তিতে শেখ হাসিনা অডিটরিয়াম নির্মাণের জন্য ২০১৯ সালে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ও নরসিংদী সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত আবেদন জানান। আবেদনের প্রেক্ষিতে কতৃপক্ষের নির্দেশে হাজীপুর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা সরকারী জায়গাটি পরিদর্শন করেন। উক্ত সরকারী জায়গার উপর চোখ পড়ে ইলিয়াছ মেম্বার ও তার সহযোগীদের।  ইতোমধ্যে একই কায়দায় কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সাইনবোর্ড লাগিয়ে সরকারী উক্ত ভূমির একাংশে ঘর নির্মাণ করে তা দখল করে নেয়। লোকমুখে শুনা যাচ্ছে অফিসটি জায়গা দখলের টেস্ট কেইস। সরকার কর্তৃক ঘরটি উচ্ছেদ বা বাঁধার সম্মুখীন না হলে এলাকার ভূমিদস্যু চক্র জায়গাটিতে একের পর এক ঘর নির্মাণ করে দখল করে নিবে। তাছাড়া নির্মিত ঘরটিতে ইলিয়াছ মেম্বার অটো গ্যারেজ করার চিন্তা করছে।

হাজীপুর ২নং ওয়ার্ডে মাসুদ মিয়ার সরবতের দোকানের পাশে কমিউনিটি পুলিশের অফিস রয়েছে। তা সত্বেও অবৈধভাবে সরকারী ভূমি দখলের অভিপ্রায়ে একই ওয়ার্ডে কমিউনিটি পুলিশের সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে সেখানে ঘর নির্মাণ করে তা দখলে নিয়েছে।

সম্প্রতি ইলিয়াছ মেম্বারের ছোট ভাই ইয়াছিন ও চাচাত ভাই রাসেলকে ডাকাতির প্রস্ততি মামলায় গ্রেফতার  করে। এ অস্ত্রধারী মাদক ব্যবসায়ী গ্রুপটি এলাকায় আধিপত্য বিস্তার  করতে আগ্নেয়াস্ত্র ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে প্রতিপক্ষ অস্ত্রধারী গ্রুপের সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সংঘর্ষ চলাকালে দুই গ্রুপের মাঝে গুলি বিনিময় হয়। পুলিশ গুলির খোসা উদ্ধার করে। এ অস্ত্রধারী গ্রুপের প্রভাবে কাঠবাজার এলাকায় ইলিয়াছ মেম্বার ও তার সহযোগীরা একের পর এক সরকারী জায়গা দখল করে সেখানে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছে। অস্ত্রধারী বাহিনী তার নিয়ন্ত্রনে থাকায় এলাকাবাসী ভয়ে তার অপকর্মের প্রতিবাদ করতে সাহস পায়না।

এ ব্যপারে ইলিয়াছ মেম্বারের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জায়গা দখলের সত্যতা স্বীকার করেন। তিনি জানান, কাঠবাজারে সরকারী জায়গায় তার হার্ডওয়ারের দোকান রয়েছে। দোকানটি লীজ নেয়ার জন্য আবেদন করা হয়েছে। বেঙ্গল খেলার মাঠের পাশে ঘরটি এলাকাবাসী নির্মাণ করেছে। তাতে সমিতির অফিস রয়েছে। এখানে কমিউনিটি পুলিশের সাইনবোর্ড ছিলনা। বাজার এলাকায় আরএস-২৮৫ দাগের সরকারী বালুর মাঠে কমিউনিটি পুলিশের অফিস ঘর নির্মাণ করা হয়। তাছাড়া বিট পুলিশের জন্য সরবতের দোকানের পাশের অফিসটি ব্যবহার করা হয়।

হাজীপুর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা অজিত বাবু জানান, ইলিয়াস মেম্বার বাজারে যেসব জায়গা দখল করে আছেন তা সরকারী সম্পত্তি। সরকারীভাবে নির্দেশনা এলে অবৈধ দখল উচ্ছেদ করা হবে। ২৮৫ আরএস দাগের জায়গাটিতে স্থানীয় একজন ইউপি সদস্য জননেত্রী শেখ হাসিনা অডিটরিয়াম নির্মাণের জন্য আবেদেন করে ছিলেন।এ ব্যপারে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এর নিকট তদন্ত প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে। তিনি এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button