জাতীয়

ডেডিকেটেড লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং রিসার্স সেন্টার গড়ে তুলতে শিল্পমন্ত্রীর নির্দেশ

শেয়ার করুনঃ

The Daily Narsingdir Bani

বাণী রিপোর্ট : বাংলাদেশ সরকারের শিল্পমন্ত্রী এ্যাডভোকেট নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন এমপি’র নির্দেশে সোমবার (১৯ অক্টোবর)
হালকা প্রকৌশল শিল্পখাতের উন্নয়নে একটি ডেডিকেটেড লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং রিসার্স সেন্টার গড়ে তোলার নির্দেশনা দিয়েছেন শিল্পসচিব কে এম আলী আজম।

তিনি বলেন, শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিটাক এ গবেষণা কেন্দ্র গড়ে তুলবে। এতে মেধাবী জনবল নিয়োগের পাশাপাশি উন্নত প্রযুক্তি সন্নিবেশ ঘটাতে হবে। এ প্রতিষ্ঠানে মেধাবী প্রকৌশলী ও গবেষকদের চাকরিতে আগ্রহী করতে উঁচু বেতন কাঠামো, বিশেষ প্রণোদনাসহ অন্যান্য আর্থিক সুবিধার নিশ্চয়তা দিতে হবে। এ লক্ষ্যে দ্রুত একটি প্রস্তাব শিল্প মন্ত্রণালয়ে প্রেরণের জন্য তিনি বিটাকের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং বিকাশে শিল্প মন্ত্রণালয় চিহ্নিত সুপারিশের বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা সংক্রান্ত এক আন্ত:মন্ত্রণালয় সভায় সভাপতিত্বকালে শিল্পসচিব এ নির্দেশনা দেন। আজ শিল্প মন্ত্রণালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো: হেলাল উদ্দিন এনডিসি হালকা প্রকৌশল শিল্পখাত বিকাশে প্রণিত সুপারিশের বাস্তবায়ন অগ্রগতি তুলে ধরেন।
এ সময় এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: সফিকুল ইসলাম, বিসিক চেয়ারম্যান মো: মোশতাক হাসান এনডিসি, বিটাক মহাপরিচালক আনোয়ার হোসেন চৌধুরী, শিল্প মন্ত্রণালেয়ের অতিরিক্ত সচিব বেগম পরাগ ও মোহাং সেলিম উদ্দিন, বাংলাদেশ লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প মালিক সমিতির সভাপতি মো: আব্দুর রাজ্জাক, শিল্প, বাণিজ্য, পরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড, বাংলাদেশ ব্যাংক, এফবিসিসিআইসহ কমিটি সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্পখাতে চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম বেগবান করতে ডেডিকেটেড শিল্পপার্ক স্থাপন, এখাতের উদ্যোক্তাদের জন্য অল্প খরচে ফান্ড (Low cost fund) সরবরাহ ও আর্থিক প্রণোদনা প্রদান, প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ কর্মী ও ব্যবস্থাপক তৈরি, উৎপাদিত পণ্য বাজারজাতকরণ, সাবকন্ট্রাকটিং শিল্পের বিকাশ ও আইন প্রণয়ন এবং হালকা প্রকৌশল শিল্প নীতি প্রণয়ন সংক্রান্ত সুপারিশের বাস্তবায়ন অগ্রগতি বিস্তারিত আলোচনা হয়।
সভায় জানানো হয়, সম্ভাবনাময় এলাকা চিহ্নিত করে বিসিক ইতোমধ্যে ডেডিকেটেড লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্পপার্ক স্থাপনের কাজ শুরু করেছে। পাশাপাশি সংস্থাটির বাস্তবায়নাধীন অন্য শিল্পপার্কেও হালকা প্রকৌশল শিল্প উদ্যোক্তাদের জন্য জায়গা বরাদ্দ দেয়া হবে। কেমিক্যাল শিল্পের জন্য নির্মাণাধীন মুন্সিগঞ্জ বিসিক শিল্পনগরি এবং নরসিংদীর নতুন বিসিক শিল্পনগরিতে লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প উদ্যোক্তাদের জন্য ১০০ একর করে জমি বরাদ্দ দেয়া হবে। এছাড়া, নিরসিংদীতে বর্তমানে নির্মাণাধীন বিসিক শিল্পনগরিতে আরও ১০ একর জমি হালকা প্রকৌশল উদ্যোক্তাদের বরাদ্দ দেয়া হবে বলে সভায় তথ্য প্রকাশ করা হয়।

সভায় দ্রুত লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প নীতিমালার খসড়া চূড়ান্ত করার তাগিদ দেয়া হয়। পাশাপাশি এখাতের উদ্যোক্তাদের উৎপাদিত পণ্য বিপণন নিশ্চিত করতে সাবকন্ট্রাকটিং আইনের খসড়া স্বল্পতম সময়ের মধ্যে মন্ত্রণালয়ে প্রেরণের জন্য বিসিককে নির্দেশনা দেয়া হয়। দেশের প্রত্যন্ত এলাকায় গড়ে ওঠা হালকা প্রকৌশল উদ্যোক্তাদের পণ্য বিপণনের সুবিধার্থে বিসিক, এসএমই ফাউন্ডেশন, বিটাক এবং বাংলাদেশ লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প মালিক সমিতির যৌথ উদ্যোগে হালকা প্রকৌশল শিল্প মেলা আয়োজনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। এছাড়া, হালকা প্রকৌশলখাতে বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে উপখাতভিত্তিক (Item-wise) কনসেপ্ট নোট তৈরি করে তা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে বিদেশি উদ্যোক্তাদের কাছে প্রেরণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভাপতির বক্তব্যে শিল্পসচিব বলেন, হালকা প্রকৌশল এ মুহুর্তে বাংলাদেশের সবচেয়ে সম্ভাবনাময় শিল্পখাত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চলতি বছর হালকা প্রকৌশল শিল্পকে ‘প্রোডাক্ট অব দ্যা ইয়ার’ ঘোষণা করায় এ শিল্পের গুরুত্ব অনেক বেড়েছে। শিল্পোন্নত বাংলাদেশের লক্ষ্য অর্জনে এ শিল্পখাতের পরিকল্পিত উন্নয়ন ঘটাতে হবে। এ লক্ষ্যে ডেডিকেটেড শিল্পপার্ক ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার পাশাপাশি উন্নত প্রশিক্ষণ সুবিধা বাড়াতে হবে। তিনি দেশিয় হালকা প্রকৌশল পণ্যের বিপণন জোরদারে অভ্যন্তরীণ বাজারের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বাজার লিংকেজ শক্তিশালী করার পরামর্শ দেন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং পণ্যের বর্তমান বাজার প্রায় ৩০ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে ৯ হাজার কোটি টাকার পণ্য দেশে উৎপাদিত হয়। বাকি পণ্য বিদেশ থেকে আমদানি করতে হয়। বিশ্ববাজারে হালকা প্রকৌশল পণ্যের চাহিদা ৭ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার। এর মধ্যে বাংলাদেশ ৩৪৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য রপ্তানি করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button