পারফিউম ফ্যাক্টরী এলকোহল মুক্ত সুগন্ধির দুনিয়ায় পারফিউম ফ্যাক্টরি আপনার জন্য একটি " ব্লাইন্ড বাই" প্লাটফর্ম "পারফিউম ফ্যাক্টরি"।
সারাদেশ

হত্যাকান্ডের ১ ঘন্টার মধ্যে আসামি গ্রেফতার

The Daily Narsingdir Baniবাণী রিপোর্টঃ ভিকটিম শাওন খন্দকার (২৮) এর বাড়ি বাউফল থানার বিলবিলাসে। মাস্টার্সে পড়ালেখার পাশাপাশি গাজিপুরের একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে সে। অপরদিকে আসামি রাজিব রাজা (২৮) বাউফল থানার মদনপুরা গ্রামের বাসিন্দা। সেও ঢাকায় থাকে। রাজিব স্বভাবে কিছুটা উগ্র মেজাজের, অতি সামান্য বিষয়কে কেন্দ্র করে হুটহাট রেগে যায়।

সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের কারণে কাজ বন্ধ থাকায় দুইজনই বাড়িতে চলে এসেছে। অবসর সময় কাটানোর জন্য মাঝে মধ্যে বিলবিলাস বাজারে বসে আড্ডা দেয় তারা।২৪ আগস্ট ২০২০ তারিখ, সকাল আনুমানিক ১১.০০ ঘটিকা। বিলবিলাস বাজারস্থ আল আমিন সর্দারের হোটেলে সিঙ্গাড়া খাচ্ছিল রাজিব। এ সময় শাওনও সেখানে গিয়ে বসে। কিছুক্ষণের মধ্যেই দুজনের মধ্যে গল্প জমে উঠে। কিন্তু, কথা বলার এক পর্যায়ে অতি তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে দুজনের মধ্যে বাকবিতন্ডা শুরু হয়ে যায়।

কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে উত্তেজিত ও মারমুখী হয়ে উঠে রাজিব। এ সময় রাজিব প্রথমে টেবিলে থাকা কাঁচের গ্লাস ভেঙ্গে শাওনের গলায় আঘাত করে। পরবর্তিতে তার কাছে থাকা ছুরি দিয়ে শাওনের পেটে একাধিক আঘাত করে। ঘটনা দেখে আশপাশের লোকজন রাজিবকে বাধা দিতে আসলে তাদেরকেও প্রাণ নাশের হুমকি দিতে দিতে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় সে।

গলায় ও পেটে উপর্যপূরী আঘাতের কারনে প্রচুর রক্তক্ষরণ হতে থাকে শাওনের। ঘটনাস্থলে থাকা লোকজন শাওনকে উদ্ধার করে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যায়। তবে, অত্যধিক রক্তক্ষরণের কারনে হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত ডাক্তার শাওনকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।এ নৃশংস হত্যাকান্ডের সংবাদ প্রাপ্তির সাথে সাথে বাউফল থানা পুলিশের একটি দল অতিদ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। ঘটনাস্থল থেকে তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে দ্রুত আসামি গ্রেফতারের কাজে নেমে পরে দলটি।

গোপন সূত্রে তারা জানতে পারে যে আসামি রাজিব তার বাড়িতেই লুকিয়ে আছে। উক্ত সংবাদ পেয়ে তাকে গ্রেফতার জন্য তার বাড়ি ঘিরে ফেলে পুলিশ। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আসামি রাজিব তার বাড়ির পেছনে ধান ক্ষেতের ভিতর দিয়ে পাশের গ্রামে পালিয়ে যাবার চেষ্টা করে।কিন্তু, পুলিশ তাকে দেখে ফেলে তার পিছু ধাওয়া করতে থাকে। পুলিশের ধাওয়া খেয়ে আসামি রাজিব এক পর্যায়ে ধান ক্ষেতের পাশের বিলের মধ্যে নেমে পড়ে। পুলিশ সদস্যগণও আসামি গ্রেফতারের জন্য বিলের পানিতে ঝাঁপিয়ে পড়ে। বিলের গলা পানিতে নেমে ধাওয়া করে শেষ পর্যন্ত আসামি রাজিবকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button