ফিচারব্লগ

অবসরে বই পড়া | তারেক মিয়া

লেখক ও কলামিস্ট, সৌদি আরব। 

শেয়ার করুনঃ

The Daily Narsingdir Bani

বই মানুষের প্রকৃত ভালো বন্ধু এতে কোন রকম সন্দেহ নেই। একটি ভালো বই অনেক সময় আমাদের জীবনের চাকা ঘুরিয়ে দেয়। ভালো লেখক ও ভালো বই দুইটাই আমাদের মনের এককোনায় নিজের অজান্তেই জায়গা দখল করে রাখে। সখের বশত কিংবা বই পড়ার প্রবল আগ্রহ থেকে জীবনে একটি হলেও বই পড়েনি এরকম ব্যক্তির সংখ্যা খুবই নগন্য।

অবসর মানেই আমার মতে বই পড়ার এক সুবর্ণ সুযোগ যেটা আমি সবসময় কাজে লাগাতে যথেষ্ট চেষ্টা করে থাকি। বই আমাদের সব সময়ের সঙ্গী জ্ঞান অর্জনে বইয়ের বিকল্প আর কি হতে পারে? কিন্তু এটা সত্য এই পড়াকে কেন্দ্র করেই আমাদের অনেক অনিহা। আমরা বই পড়তে খুবই কম অভস্ত্য। ছাত্র জীবনে পাঠ্য বইয়ের বাহিরে গিয়ে দুটি একটি বই পড়তে গিয়ে মা-বাবার মিষ্টি বকনি শুনতে হয়নি এরকমের শিক্ষার্থী খুবই নগন্য। বই পড়তে অনেক বাধা। তাই আমাদের মনে স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন জাগে বই পড়ে কি হবে?

সত্যিইতো বই পড়ে কি হবে? বই পড়ে কি লাভ। বই কি আমাদের টাকা কিংবা সম্পদশালী করতে পারবে? অহেতুক বই পড়ে সময় নষ্ট করা অযৌক্তিক। এরকম চিন্তা ভাবনা সাধারণ মানুষের নিত্যসঙ্গী।

আমরা প্রত্যক্ষ লাভের আশায় সদা বিভোর থাকি তাই পরোক্ষভাবে ও যে লাভবান হওয়া সম্ভব তা চিন্তাই করতে অক্ষম। তাইতো বর্তমান প্রযুক্তির যুগে আবসর সময় কাটানোর একসময়কার সবচেয়ে ভালো মাধ্যম বই পড়া এখন আর আবসর বিনোদনের ক্ষেত্রে এতটা বেশি ভূমিকা রাখতে পারছে না।

বই পড়ার মাধ্যমে আমরা আমাদের মধ্যে যে সকল দিক সমূহ উন্নতি করে একজন মানবিক গুণ সম্পূর্ণ মানুষ হিসেবে নিজেদেরকে গড়তে পাড়ি।

তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য দিক সমূহ

১! অধিক পরিমাণে বই পড়ার মাধ্যমে আমরা আমাদের মানসিক চিন্তা হ্রাস করতে পারি।

২! আমরা আমাদের চিন্তার জগতকে বিকাশিত করতে পারি।

৩! একজন সৃজনশীল মানুষ হিসেবে আমাদের নিজেদেরকে আবিষ্কার করতে পারি।

৪! অধিক পরিমাণে বই পড়ার মাধ্যমে আমরা আমাদের শব্দ ভান্ডার কে আরো বেশি সমৃদ্ধ করতে পারে এবং ভাষাগত দক্ষতা বৃদ্ধি করতে পারি।

৫! বিভিন্ন রকমের বই আমাদের বিভিন্ন রকমের জ্ঞান অর্জনে সহায়তা করে এক্ষেত্রে আমরা আমাদের জানার প্রয়োজন অনুসারে বই পড়ে সেই বিষয়ে অধিকতর দক্ষতা অর্জন করতে সক্ষম হই।

৬! স্মৃতিশক্তি উন্নতিতে বই পড়া ব্যাপক ভূমিকা রাখে।

সর্বোপরি জ্ঞান অর্জনের পিপাসা মিটাতে বই পড়ার বিকল্প আর কিছুই হতে পারে না। এজন্য আমাদের উচিত নিয়ম তান্ত্রিক বই পড়া এবং অবসর সময়কে বই পড়ার একটি সুবর্ণ সুযোগ হিসেবে গ্রহণ করা। পৃথিবীতে যারা যত সফলতার চরম শিখরে আরোহন করেছেন তারা তত বেশি অধ্যয়ন করেছেন, অধিক পরিমাণে বই পড়ে নিজেদের জ্ঞানকে বিকশিত করেছেন। বর্তমান প্রযুক্তির যুগে আমরা অনলাইন বা অফলাইনে বিভিন্ন প্রকারের বই বিনামূল্যে পড়তে পারছি এতে করে বই কিনে পড়ার যে ব্যয় সেটি আর বহন করতে হচ্ছে না। সরকারি ও বেসরকারী ব্যবস্থাপনায় অধিক পরিমাণে গণপাঠাগার সৃষ্টির মাধ্যমে আরো বেশি পাঠক সৃষ্টির দ্বার উন্মোচিত হবে এজন্য সরকারি এবং বেসরকারি উদ্যোগ গ্রহণ করা অতীব জরুরি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button