নরসিংদীর খবরনরসিংদী সদর

নরসিংদী ডিবি পুলিশের অভিযানে  প্রতারণা ও মুক্তিপণ আদায়কারী চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার

শেয়ার করুনঃ

The Daily Narsingdir Baniবাণী রিপোর্ট : অভিনব কায়দায় প্রতারণা ও মুক্তিপণ আদায়কারী অপরাধী চক্রের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে নরসিংদী ডিবি (গোয়েন্দা) পুলিশ ।

মঙ্গলবার (২৩ জুন) নরসিংদী পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার বিপিএম (বার) পিপিএম এর নির্দেশনায় ডিবি পুলিশের এসআই জাকারিয়া আলম ও সঙ্গীয় ফোর্স ভিকটিমকে নিয়ে অভিযান পরিচালনা করে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় অপরাধীদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো (১) রোহান আহম্মদ খান(২৩), পিতা-আইউব আলী, সাং-যুগিরটেক, (২) মোঃমোখসেদুল মিয়া(২১),পিতা-ইসরাফিল,সাং-বিরামপুর,(৩) মোঃ মাসুদ মিয়া(২৪),পিতা-আঃ রহিম,সাং-কান্দাপাড়া,সর্বথানা-মাধবদী,(৪) মোঃ মারুফ মিয়া (২১),পিতা-মোশারফ মিয়া, সাং-বাগহাটা,থানা ও জেলা-নরসিংদী।

নরসিংদী জেলা পুলিশের মিডিয়া সমন্বয়কারী ও জেলা ডিবি পুলিশের ইন্সপেক্টর রুপন কুমার সরকার জানান, প্রতারক ও মুক্তিপণ আদায়কারী চক্রের সদস্যরা বিক্রয় ডটকমের মাধ্যমে মোবাইল বিক্রির বিজ্ঞাপন দেয়। বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়ে ইরফানুল হক (২৭) নামে এক ব্যক্তি ব্রাহ্মণবাড়ীয়া হতে মোবাইল ফোন কিনতে গত ১৯ মে সকাল সাড়ে এগারটায়  নরসিংদীর পাঁচদোনা মোড় রাজধানী হোটেলের সামনে আসে।

সেখানে মোবাইল দেখানোর কথা বলে একজন অজ্ঞাতনামা লোক (যার মোবাইল নম্বর বিক্রয় ডটকমের বিজ্ঞাপনে দেওয়া ছিল) সহ ৩টি মোটরসাইকেলে করে ৬/৭ জন লোক এসে ইরফানুল হককে অভিনব কৌশলে প্রতারণাপূর্বক মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে গোপন স্থানে আটক করে। পরে তার সাথে থাকা ৯ হাজার টাকা ছিনাইয়া নেয়। মুক্তিপন হিসেবে ইরফানুল হককে মারধরের ভয়ভীতি প্রদর্শন করে বাড়ী থেকে আরো পঞ্চাশ হাজার টাকা আনার চাপ প্রয়োগ করে। ভিকটিম কৌশল অবলম্বন করে বাড়ী থেকে তার বিকাশে ৫ হাজার টাকা আনে এবং অপহরণকারীদের একটা বিকাশ নম্বরে সেন্ডমানি করে। অপহরনকারীদের টাকা দিয়ে ইরফানুল হক মুক্তি পায়।

পরবর্তীতে ইরফানুল হক নরসিংদী এসে পুলিশ সুপার নরসিংদীকে অপহরন ও মুক্তিপণের বিষয়টি  অবগত করলে তিনি জেলা ডিবি (গোয়েন্দা) পুলিশকে অপরাধীদের গ্রেফতারের নির্দেশ দেন। আদেশ প্রাপ্ত হয়ে ডিবি পুলিশে এসআই জাকারিয়া আলম টিমসহ ভিকটিমকে নিয়ে অভিযান পরিচালনা করে। তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় আসামীদের অবস্থান সনাক্তপূর্বক ভিকটিমের সনাক্ত মতে অভিনব প্রতারণা ও মুক্তিপণ আদায়কারী চক্রের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করে।

আসামীরা দীর্ঘদিন যাবত সংঘবদ্ধভাবে অভিনব প্রক্রিয়ায় প্রতারণা করিয়া অপহরণ করতঃ মুক্তিপণ আদায় করে আসতেছিল। গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে ভিকটিম ইরফানুল হক বাদী হয়ে মাধবদী থানায় এজাহার দায়ের করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button