নরসিংদীর খবরপলাশ

নরসিংদীর পলাশে ঘুড়ি উড়ানোকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ; বাড়িঘর ভাঙচুর লুটপাট

শেয়ার করুনঃ

The Daily Narsingdir Bani

বাণী রিপোর্টঃ নরসিংদীর পলাশের দক্ষিণ গালিমপুরে ঘুড়ি উড়ানোকে কেন্দ্র করে স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা ইমনের নেতৃত্বে বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ১২ ঘরসহ ১টি দোকান ভাঙচুর ও লুটপাট করেছে প্রায় ২শত মানুষ।

এ সময় নগদ অর্থ ও স্বর্ণালঙ্কার লুট করা হয়। এতে আহত হয়েছেন ৭ জন। এমনটাই অভিযোগ করেছে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের লোকজন।

২০জুলাই (শনিবার) রাতে উপজেলার ডাঙ্গা ইউনিয়নের দক্ষিণ গালিমপুরে এই হামলা চালানো হয়। হামলা ও ভাঙচুরের পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় এখনো পর্যন্ত পলাশ থানায় কোনো মামলা হয়নি।

স্থানীয়রা জানান, গত শুক্রবার বিকেলে গালিমপুর উত্তরপাড়ার একটি ক্ষেতে কয়েকজন অল্পবয়সী ছেলে ঘুড়ি উড়াতে যায়। এ সময় ঘুড়ি কাটাকাটি নিয়ে ওই ছেলেদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। এই ঘটনার জের ধরে গতকাল শনিবার রাতে গালিমপুর উত্তরপাড়ার আলেক মিয়ার ছেলে ও স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা ইমনের নেতৃত্বে প্রায় ২শত লোকের একটি দল নিয়ে গালিমপুর দক্ষিণপাড়ার ১২টি ঘর ও ১টি দোকানে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট করে। এ সময় প্রতিটি ঘর থেকে নগদ অর্থ, স্বর্ণালঙ্কার লুট করা হয়। এতে করে প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন তারা।

এদিকে ইউনিয়ন যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সরকারের বাড়ী-ঘরও হামলা কারীদের দ্বারা ভাংচুর ও লুটপাট হওয়ায় তার পক্ষের লোকজন স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা বলে প্রতিষ্ঠা করতে চাইলেও অন্যান্য ক্ষতিগ্রস্তরা তা ঘুড়ি উড়ানোর বিবাধ বলে শিকার করেন।

ঘটনার পর থেকে এলাকায় আতঙ্কে আছেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের লোকজন। এই ঘটনায় সঠিক বিচার দাবি করেছেন তারা।

ডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাবের-উল হাই বলেন, হামলার ঘটনা সত্য। তবে এই হামলার সাথে যেই জড়িত থাকুক তার উপযুক্ত বিচার হবে। সে ছাত্রলীগের হোক আর যেই হোক। এছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে যতটুকু সহযোগিতা করতে হয় আমি করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button