নরসিংদীর খবর

মাধবদীতে চাঁদাবাজি ও প্রতারণা করতে গিয়ে ভূয়া সেনা কর্মকর্তা গ্রেফতার

শেয়ার করুনঃ

The Daily Narsingdir Baniবাণী রিপোর্ট :বাজার এলাকায় চাঁদাবাজি ও প্রতারণা করার সময় মোহাম্মদ আফজাল মিনহাজ সংগ্রাম (৫৫) নামে ভূয়া সেনা কর্মকর্তা পরিচয় দানকারী প্রতারককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার (১৭জুন) নরসিংদী সদর উপজেলার শেখেরচর বাজার এলাকায় চাঁদাবাজি করার সময় মাধবদী থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

পুলিশ জানায়, প্রতারক আফজাল সেনাবাহিনীর ট্রাকসুট ব্যবহার করে সেনা কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে দীর্ঘদিন যাবত মাধবদী ও মাধবদী থানাধীন খড়িয়া বাজার, শান্তি বাজার, কামরাঙ্গীর, পুরিন্দা বাজার,কান্দাইল বাজার ও শেখার বাজার, সহ বিভিন্ন বাজারে প্রতারণা ও চাঁদাবাজি করে আসছিল।

সম্প্রতি সে মাধবদী কান্দাইল বাজারের মাংস বিক্রেতা জাকির হোসেনের দোকান থেকে প্রায় ৫৯৫০০টাকার মাংস নিয়ে টাকা না দিয়ে সেনাবাহিনীর পরিচয় দিয়ে তাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে চলে যায়।

গত ১৭ জুন মঙ্গলবার মাধবদী বাজারের কলেজ রোডে কয়েকজন পথচারীকে প্রচন্ড মারপিট করে এবং সেনাবাহিনীর পরিচয় দিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। মাধবদী বাজারের কয়েকজন মাংস ব্যাবসায়ীর কাছ থেকে বাকীতে মাংস নিতে চাইলে তারা দেয়নি। পরে সে ব্যবসায়ীদের ভয়ভীতি দেখিয়ে চলে যায়।

এরপর প্রতারক শেখেরচর বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় গিয়ে বিভিন্ন দোকানে টাকা চাইলে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সন্দেহ হয়। পরে তারা মাধবদী থানা পুলিশকে খবর দেয় । খবর পেয়ে মাধবদী থানা পুলিশ ঘটনা স্থানে গিয়ে তাকে গ্রেফতার করে মাধবদী থানায় নিয়ে আসে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সে প্রতারণা ও চাঁদাবাজির ঘটনা স্বীকার করে । প্রতারক আফজাল মিনহাজ সংগ্রাম নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম থানার চাঁনদীপুর গ্রামের এরশাদ আলী মণ্ডলের ছেলে।সে দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন এলাকায় সেনা কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণা ও চাঁদাবাজি করে আসছিল।

এদিকে আমদিয়া ইউনিয়নের কান্দাইল বাজারের মাংস ব্যাবসায়ী জাকির মাধবদী থানায় এসে প্রতারককে সনাক্ত করে। জাকির হোসেন পুলিশের কাছে তার মাংসের টাকা উদ্ধার করার জন্য অনুরোধ করে।পরে জাকির বাদী হয়ে মাধবদী থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

পুলিশ প্রতারকের কাছ থেকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর মনোগ্রাম খচিত সবুজ রংয়ের ফুলহাতা ট্রাকসুট ও একটি ফুল ট্রাউজার এবং একটি নীল রংয়ের নাম্বার বিহীন একটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করে।আজ   বৃহস্পতিবার প্রতারক কে নরসিংদী আদালতে প্রেরন করে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button