নরসিংদীর খবরপলাশ

হতদরিদ্র শিশুটির চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শাহেদ আহমেদ

এরাই মানুষরূপী দেবতা

শেয়ার করুনঃ

The Daily Narsingdir Bani

বাণী রিপোর্ট : হতদরিদ্র দিন মজুর বাবার সন্তান নরসিংদীর পলাশ উপজেলার সমবায় আদর্শ বিদ্যানিকেন স্কুলের ২য় শ্রেণির ছাত্রী অশ্রু (৭)। খেলতে গিয়ে দুর্ঘটনায় শরীরের ডান পাশে কোমরের অংশ থেকে পায়ের হাড় সরে যায়। হতদরিদ্র বাবার পক্ষে শিশুটির চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করা সম্ভব নয়। ফলে গত এক সপ্তাহ যাবত বিনা চিকিৎসায় প্রচণ্ড ব্যথা নিয়ে আত্মচিৎকার করে যাচ্ছে শিশু অশ্রু। দারিদ্রের কষাঘাতে জর্জরিত মা-বাবার হৃদয়ে ঘটছিল রক্তক্ষরণ। এ অবস্থায় মেয়ের চিকিৎসার খরচ যোগাতে সমাজের বিত্তবানদের কাছে মানবিক  সাহায্য কামনা করেন অশ্রুর বাবা সঞ্জয় দাস।

সঞ্জয় পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল পৌরসভার নতুন বাজার এলাকায় ভাড়া বাসায় স্ত্রী  ও দুই সন্তান নিয়ে বসবাস করছেন। তিনি পেশায় একজন দিনমজুর। এ ব্যপারে স্থানীয় একজন সংবাদকর্মী ৬ জুন (শনিবার) শিশুটির চিকিৎসায় মানবিক সাহায্যের আবেদন জানিয়ে একটি পোস্ট দেয়। বিষয়টি নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শাহেদ আহমেদ এর নজরে আসে । পরে তিনি ওই দিন সন্ধ্যায় অশ্রুর শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতে তার বাড়িতে গিয়ে চিকিৎসার দায়িত্বভার গ্রহণ করেন।

রোববার (৭জুন) সকালে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্সে করে অশ্রুকে তার বাবা-মায়ের সাথে পাঠানো হয়। এছাড়াও সমাজের বিত্তবানরা মানবিক সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়ে শিশু অশ্রুর পরিবারের কাছে নগদ প্রায় পনের হাজার টাকা তুলে দেন।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শাহেদ আহমেদ সাংবাদিকদের জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শিশু অশ্রুর জন্য মানবিক আবেদন পোস্ট দেখতে পাই। পরে পলাশ উপজেলা রিপোর্টার্স ক্লাবের স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছ থেকে বিস্তারিত জেনে শিশুটিকে দেখতে যাই এবং মানবিকতার টানে তার চিকিৎসার দায়িত্ব নিই। শিশুটিকে তার মা বাবাসহ পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আবেগ জরিত কণ্ঠে শিশুটির মা-বাবা জানায়, এখনো মানুষ আছে দুনিয়ায়। এরাই মানুষরূপী দেবতা। মানুষরূপী এসব দেবতারা দরিদ্র অসহায় মানুষের বিপদের দিনে পাশে এসে দাড়ায়। তারা যেন ভালো থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button