নরসিংদীর খবরবেলাবো

শিল্পমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকা বেলাবতে খাদ্য সামগ্রীর দাবিতে বিক্ষোভ

শেয়ার করুনঃ
The Daily Narsingdir Bani
সামাজিক দূরত্ব অমান্য করে বিন্নাবাইদ ইউনিয়ন পরিষদ মাঠে এলাকার শত শত মানুষ জমায়েত হয়ে বিক্ষোভ করেন। এ সময় বিক্ষোভকারীরা ইউপি চেয়ারম্যান মো. গোলাম মোস্তুফা গোলাপের বিরুদ্ধেও স্লোগান দেন।

বাণী রিপোর্ট: করোনা পরিস্থিতিতে শিল্পমন্ত্রী এড. নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন এর নির্বাচনী এলাকা নরসিংদীর বেলাব উপজেলায় খাদ্য সামগ্রী পাওয়ার দাবিতে কর্মহীন, অসহায় ও অভাবগ্রস্থ মানুষ বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) সামাজিক দূরত্ব অমান্য করে বিন্নাবাইদ ইউনিয়ন পরিষদ মাঠে এলাকার শত শত মানুষ জমায়েত হয়ে বিক্ষোভ করেন। এ সময় বিক্ষোভকারীরা ইউপি চেয়ারম্যান মো. গোলাম মোস্তুফা গোলাপের বিরুদ্ধেও স্লোগান দেন। খবর পেয়ে বেলাব থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

জানা যায়, করোনা ভাইরাসের কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া দরিদ্র মানুষদের মাঝে সারাদেশের ন্যায় বিন্নাবাইদ ইউনিয়নেও তিন দফায় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। প্রথম দফায় ১৫০ জনের প্রত্যেককে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ৩ কেজি আলু ও ১টি করে সাবান দেয়া হয়। কিন্তু ২য় ও ৩য় দফায় ২’শ জনকে ডাল ও সাবান না দেয়া এবং প্রথম দফা থেকে আলু কম দেয়া হয়। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। তাদের ধারণা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান খাদ্য সামগ্রী আত্মসাৎ করেছেন।

বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ- দরিদ্র মানুষদের না দিয়ে চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তুফা গোলাপ তার অনুসারী ও আত্মীয় স্বজনের মাঝে সব সময় রিলিফ ও ত্রাণ দিয়ে থাকেন।

বিন্নাবাইদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জহিরুল ইসলাম বলেন, শুনেছি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চাল চুরির অভিযোগে এলাকাবাসী বিক্ষোভ করেছে। বরাদ্ধকৃত রিলিফ ও ত্রাণ চেয়ারম্যানের অনুসারী ও আত্মীয় স্বজন ছাড়া কাউকেই দেন না এমন অভিযোগ রয়েছে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। মনে হয়, যারা ত্রাণ পায় নাই তারাই এ বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

অভিযুুক্ত চেয়ারম্যান মো. গোলাম মোস্তুফা গোলাপ সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘বরাদ্ধ যা আসে তাই দরিদ্র মানুষের মানুষের মাঝে বিতরণ করা হয়। ইউনিয়নের গরিব মানুষের সংখ্যা বেশি। সে অনুযায়ী বরাদ্ধ আসে না। বরাদ্ধ না পেলে আমি দেবো কোথায় থেকে?’

বেলাব থানা ওসি মো. ফখরুদ্দীন ভূঁইয়া বলেন, একটি পক্ষ এলাকায় ভুল তথ্য প্রচার করে- ‘আজ সেনোবাহিনীর মাধ্যমে অত্র ইউনিয়নে ত্রাণ দেয়া হবে। এ খবরে কিছু লোক পরিষদে গিয়ে ত্রাণের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে। আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামিমা শরমিন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। অত্র ইউনিয়নে চেয়ারম্যান ত্রাণের ব্যাপারটি ভাল ভাবে ম্যানেজ করতে পারেনি বলে মনে হয়। এ কারণেই কিছু লোক বিক্ষোভ করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button