নরসিংদী সদরনরসিংদীর খবরস্বাস্থ্যকথা

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে নরসিংদী জেলা প্রশাসনের নানামূখী পদক্ষেপ: প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে নরসিংদী জেলা প্রশাসনের ১০ হাজার প্যাকেট খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

বাণী রিপোর্ট: করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ও প্রতিরোধে জেলাব্যাপী নানামূখী কর্মসূচী নিয়ে মাঠে কাজ করছে নরসিংদী জেলা প্রশাসন। প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ১০টি দিক-নির্দেশনা বাস্তবায়নে সার্বক্ষণিক নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন নরসিংদীর জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ও প্রতিরোধে জেলা প্রশাসনের বাস্তবমূখী পদক্ষেপে এ পর্যন্ত জেলার কোথাও করোনা ভাইরাস আক্রান্ত কোন রোগীর সন্ধান পায়নি জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। করোনা ভাইরাস বিষয়ে সরকারি নির্দেশনা পাওয়ার সাথে সাথে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দফতরের সমন্বয়ে করোনা মোকাবেলায় একাধিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় করোনা মোকাবেলায় করণীয় বিষয়ে বিভিন্ন দিক-নির্দেশনা প্রদান করা হয়। জেলা প্রশাসন ও পুলিশ বিভাগের নানামূখী কর্মসূচী বাস্তবায়নের ফলে জেলাব্যাপী সর্বস্তরের মানুষের মাঝে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ও প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টি হয়েছে। সর্বশেষ জেলা প্রশাসনের কার্যক্রমে সহযোগিতা করতে সেনাবাহিনী মাঠে নামায় বৃদ্ধি পেয়েছে কাজের গতি।

পারফিউম ফ্যাক্টরি

শনিবার (২৮ মার্চ) সকালে নরসিংদী জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে ঘরমূখী করতে মাঠে নামেন। এ সময় তিনি জেলাব্যাপী ১০ হাজার হতদরিদ্র ও কর্মহীন পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রীর প্যাকেট বিতরণ করেন। নরসিংদী সদর উপজেলার শিলমান্দী ইউনিয়ন পরিষদে সাধারণের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন তিনি। খাদ্য সামগ্রী বিতরণকালে আগত প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন থাকার নির্দেশনা প্রদান করেন জেলা প্রশাসক। একই সময়ে তিনি এসব পরিবারের সদস্যদেরকে ঘর থেকে বের না হওয়াসহ শিশু সন্তানদের প্রতি লক্ষ্য রাখার আহবান জানান। বিতরণকৃত পণ্য সামগ্রীর মাঝে ছিল ১০ কেজি চাল, ৫ কেজি আলু, ৩ কেজি ডাল, সাবান ও মাস্ক। এসব খাদ্য পণ্য সামগ্রী পেয়ে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে স্বস্তি ফিরে আসে।

দিনভর জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন নরসিংদীর সাধারণ মানুষের খোজঁ-খবর নেন। তিনি দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীলতার বিষয়ে বিভিন্ন বাজার পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে তিনি ক্রেতা ও বিক্রেতাদের নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী কেনা-বেচা’র পরামর্শ দেন। রাস্তাঘাট ও বাজারে অযথা ঘুরাফেরাসহ জমায়েত হতে জনসাধারণের প্রতি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। এ সময় নির্দেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান তিনি।

হাতি মার্কা সাবান হাতি মার্কা সাবান


এছাড়া জেলা প্রশাসক ওএমএস’র চাল বিক্রি কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে চাল ক্রয় করতে আসা লোকজনকে নিরাপদ দূরত্বে অবস্থানের আহবান জানান। ক্রেতাদের মাঝে তিনি মাস্ক ও হ্যান্ড-গ্লাভস্ বিতরণ করেন।

এ সময় নরসিংদীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কমল কুমার ঘোষ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাসলিমা আক্তার, সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন রেদোয়ান, শিলমান্দী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাকির, নরসিংদী প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাখন দাস, সাধারণ সম্পাদক মো: মাজহারুল পারভেজসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত নরসিংদী জেলা কমিটি’র সভাপতি সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন এর এ কার্যক্রমে সার্বিক সহযোগিতা করেন, বাংলাদেশে সেনাবাহিনী ও জেলা পুলিশের চৌকস সদস্যবৃন্দ।


একই দিন জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) ইমরুল কায়েস এর উপস্থিতিতে শহরের বিভিন্ন রাস্তাসহ বটতলা বাজার, নতুন ও পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় জীবাণুনাশক ছিটানো হয়। এ কার্যক্রমে সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চৌকস সদস্যবৃন্দ।
জনস্বার্থে জেলা প্রশাসনের এ কার্যক্রম অব্যাহত আছে ও থাকবে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button