নরসিংদী সদরনরসিংদীর খবরস্বাস্থ্যকথা

নরসিংদীতে হোম কোয়ারেন্টাইনে ৫৬৬জন ও কোয়ারেন্টাইন সম্পন্ন ২০৯জন -জেলা প্রশাসক

শেয়ার করুনঃ

The Daily Narsingdir Baniবাণী রিপোর্ট: সারা বিশ্বের ন্যায় করোনা ভাইরাস বাংলাদেশেও সংক্রমিত হচ্ছে। নরসিংদী জেলায়ও সংক্রমণের আশংকা রয়েছে। এ পরিস্থিতিতে জেলার বর্তমান অবস্থা ও প্রশাসনের পদক্ষেপ সমূহ জানাতে বুধবার (২৫ মার্চ) এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি নরসিংদী জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, বুধবার (২৫ মার্চ) পর্যন্ত জেলার বিদেশ ফেরত ৫৬৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এদের মধ্যে হোম কোয়ারেন্টাইন শেষ হয়েছে ২০৯ জনের। কেউ স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে না গেলে প্রয়োজনে আইন প্রয়োগের মাধ্যমে তাকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হবে।

জেলা প্রশাসক আরো জানান, ইতোমধ্যে এই নির্দেশনা না মানায় ইতালী ফেরত একজনকে ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড ও আরেকজনকে মুচলেকা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। বিদেশ থেকে দেশে এখনো যারা হোম কোয়ারেন্টাইনে যাচ্ছেন না তাদের বিষয়ে খোঁজ-খবর নেয়ার জন্য ওয়ার্ড পর্যায়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। তাদের খোঁজে বের করে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হবে। প্রধানমন্ত্রীর ১০টি নির্দেশনার আলোকে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, নরসিংদীতে করোনা প্রতিরোধে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বেশ কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এর মধ্যে জেলার খাদ্য, কাঁচামাল, হাসপাতাল ও জরুরী সেবা ছাড়া সকল কিছুই বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। নরসিংদী জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে ৫০টির মতো মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা আদায়সহ একজনকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। প্রতিনিয়তই জেলা প্রশাসনের একাধিক টিম বাজার মনিটরিং করছে। গ্রামাঞ্চলে কিছু দোকানপাট খোলা থাকলেও রাস্তায় যানবাহনসহ জনগণের চলাচল কমানো হয়েছে। এছাড়া করোনা ভাইরাস নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোন প্রকার ভুল তথ্য পরিবেশন না করার জন্য সাংবাদিকদের অনুরোধ জানান জেলা প্রশাসক।

The Daily Narsingdir Bani

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার জানান, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জেলার প্রায় ২২ লক্ষ লোকের জন্য ১৭’শ পুলিশের সমন্বয়ে ৪৫টি টিম প্রতিদিন জেলার বিভিন্ন হাট বাজার রাস্তা-ঘাটে টহল দিচ্ছে। এছাড়া যারা বিদেশ থেকে দেশে এসেও কোয়ারেন্টাইনে যাচ্ছে না, তাদের তালিকা অনুযায়ী ব্যবস্থা নিচ্ছে জেলা পুলিশ।

সিভিল সার্জন ডা: মোহাম্মদ ইব্রাহিম টিটন বলেন, নরসিংদীতে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে সকল প্রকার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। বেলাব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১০০ শয্যা বিশিষ্ট একটি আইসোলেশন প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া জেলা ও সদর হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ড প্রস্তুত রয়েছে। চিকিৎসকদের জন্য দুই শতাধিক পিপিই পাওয়া গেছে, আরো কিছু আসার সম্ভাবনা রয়েছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জেলা প্রশাসনকে সহায়তা করতে লে: কর্ণেল সালাম এর নেতৃত্বে ৯ম পদাতিক ডিভিশনের সেনা বাহিনীর একটি দল নরসিংদীতে কাজ করছে বলেও জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে। তারা জেলা প্রশাসনের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করবে। নরসিংদীতে ১টি ও রায়পুরায় ১টি ক্যাম্প স্থাপনের মাধ্যমে কাল অথবা পরশু তাদের এ কার্যক্রম শুরু করবে।

সম্মেলনে জেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ইমার্জেন্সী সেলের আহবায়ক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ইমরুল কায়েস ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা গৌতম মিত্র বক্তব্য রাখেন। সংবাদ সম্মেলনে নরসিংদী প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাখন দাস, সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল পারভেজসহ অন্যান্য সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন জেলা প্রশাসক। সবশেষে দেশের বর্তমান অবস্থার উন্নতি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button