আইন-আদালতনরসিংদীর খবরপলাশ

পলাশে আনসার ও এলাকাবাসীর সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় ১২৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

The Daily Narsingdir Baniবাণী রিপোর্ট: নরসিংদীর পলাশ উপজেলায় সার কারখানার আনসার ক্যাম্পের সদস্যদের সাথে এলাকাবাসীর সংঘর্ষের ঘটনায় ৯ জনের নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাতনামাসহ ১২০ জনকে আসামি করে মামলা করেছে সার কারখানা কর্তৃপক্ষ। বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) সকালে পলাশ ইউরিয়া সার কারখানার সহকারী ব্যবস্থাপক (নিরাপত্তা) শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে পলাশ থানায় এ মামলা দায়ের করেন। তথ্যটি নিশ্চিত করেন পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. নাসির উদ্দিন।
এজাহারভুক্ত আসামিরা হলেন- চরসিন্দুর ইউনিয়নের বালিয়া গ্রামের সুরুজ মিয়ার পুত্র মনিরুজ্জামান (৪৫), মোতালিব মিয়ার পুত্র সোহেল মিয়া, মনির উদ্দিনের পুত্র মুহিত মিয়া (৩০), শেখ আম্বর আলীর পুত্র বাবুল আহম্মেদ (৪৫), ঘোড়াশাল পৌর এলাকার কাঠালিয়াপাড়া গ্রামের মানিক মিয়া, ঘোড়াশাল পৌর এলাকার খানেপুর গ্রামের মৃত আমজাদ হোসেনের পুত্র মো. মেহেদী (২৫), মুজিবুর, সুমন মিয়া ও মনির হোসেন।
জানা যায়, সার কারখানার উন্নয়ন কাজের সুবিধার্থে গত একমাস পূর্বে একটি রাস্তা দেয়াল দিয়ে বন্ধ করে দেয় পলাশ ইউরিয়া সার কারখানা কর্তৃপক্ষ। এরপর থেকে দফায় দফায় প্রতিবাদ জানিয়ে আসছে গ্রামবাসী। তবে কারখানার পাশ দিয়ে সাধারণ মানুষের চলাচলের জন্য নতুন একটি রাস্তা নির্মাণ করে দেয় কর্তৃপক্ষ।
এদিকে গত সোমবার বিকেলে সার কারখানার দেয়ালের পাশে পিক-আপ ভ্যানের সঙ্গে মোটরসাইকেল সংঘর্ষে খানেপুর গ্রামের মৃত কাদিরুজ্জামানের পুত্র ইকবাল হোসেন ভ‚ইয়া (৪৫) নিহত হন। এ ঘটনায় এলাকাবাসী উত্তেজিত হয়ে ওই নির্মিত দেয়ালটি ভেঙে ফেলে।
পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. নাসির উদ্দিন জানান, এলাকাবাসীকে সার কারখানার আনসার ক্যাম্পের সদস্যরা বাধা দিতে গেলে উত্তেজিত এলাকাবাসী আনসার সদস্যদের লক্ষ করে ইট-পাটকেল ছুঁড়তে থাকে। এ সময় সার কারখানার নিরাপত্তাকর্মীসহ কয়েকজন আনসার সদস্য আহত হন। পরে সার কারখানার সহকারী ব্যবস্থাপক (নিরাপত্তা) শফিকুল ইসলামের একটি মোটরসাইকেল ভেঙে গুড়িয়ে দেয় উত্তেজিত এলাকাবাসী। সংঘর্ষে আনসার সদস্য ও এলাকাবাসীসহ কমপক্ষে ৫ জন গুরুত্বর আহত হন। অভিযুক্তদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি।

Perfume Factory

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker