নরসিংদী সদরনরসিংদীর খবরব্যবসা-বাণিজ্য

নরসিংদী সদর উপজেলায় টোলচার্ট ছাড়াই চলছে হাট-বাজার ইজারার সিডিউল বিক্রি

বাণী রিপোর্ট: নরসিংদী সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় থেকে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের নির্ধারিত টোলচার্ট ছাড়াই দরপত্র দাখিলের শেষ দিনে বিক্রি হয়েছে হাট-বাজার ইজারার দরপত্র (সিডিউল)। টোলচার্ট সরবরাহ না করায় ইজারা মূল্য নির্ধারণ করতে পারছেন না দরপত্র (সিডিউল) ক্রেতাগণ। তাই হাজীপুর কাঠবাজারের দরপত্র (সিডিউল) ক্রেতাগণ দরপত্র দাখিলের সময়সীমা বর্ধিতকরণসহ অফিস থেকে টোলচার্ট সরবরাহের জন্য জেলা প্রশাসক ও নরসিংদী সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে লিখিত আবেদন জানিয়েছেন।

পারফিউম ফ্যাক্টরি

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের স্মারক নং- ৪৬.০৪১.০৩০.০২.০০.০০২.২০১১.৮৭০, তারিখ- ২১/০৯/২০১১ খ্রি. অনুযায়ী নরসিংদী উপজেলাধীন ১৪২৭ বাংলা সনের হাট-বাজার ইজারার দরপত্র বিজ্ঞপ্তি সদর ইউএনও কার্যালয়ের নোটিশ বোর্ডে প্রচার করা হয়েছে। এদিকে দরপত্র আহ্বান করা হলেও মন্ত্রনালয় নির্ধারিত টোলচার্ট সরবরাহ করতে পারছে না দরপত্র বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠান।

জানা যায়, গত ৩০ জানুয়ারী’২০ তারিখে নরসিংদী সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের স্বাক্ষরিত উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারের ইজারা বিজ্ঞপ্তি অফিসের নোটিশ বোর্ডে সাঁটানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ৩০ জানুয়ারী হতে ১০ মার্চ’২০ পর্যন্ত দরপত্র বিক্রির সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়। ১১ মার্চ বুধবার দরপত্র দাখিলের নির্ধারিত দিন।

হাতি মার্কা সাবান হাতি মার্কা সাবান

দরপত্র ক্রেতাগণ অভিযোগ করেন, অখ্যাত-কুখ্যাত ও কতিপয় অফিসে প্রেরিত কপি সর্বস্ব পত্রিকায় বিজ্ঞাপন প্রচার করায় তারা সঠিক সময়ে দরপত্র সম্পর্কে অবগত হতে পারেননি। উপজেলার হাজীপুর কাঠ-বাজার ইজারা গ্রহনে আগ্রহী দরপত্র ক্রেতাগণ গত ৯ মার্চ’২০ তারিখে ইউএনও অফিসে গিয়ে ইজারা সম্পর্কিত বিষয়ে অবগত হন। তাৎক্ষণিক দরপত্র ক্রয় করতে গিয়ে বিফল মনোরথ হয়ে ফিরে আসেন দরপত্র ক্রেতাগণ।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সিএ কাম ইউডি মো: নাইম দরপত্র ক্রেতাদেরকে বলেন, আমার কাছে নাই, এ অফিসে কে বিক্রি করেন তা আমার জানা নাই। এসিল্যান্ড অফিসে গিয়ে দেখেন, সেখানে পাবেন। পরে ক্রেতাগণ নরসিংদী সদর এসিল্যান্ড অফিসে গিয়ে জানতে পারেন, সেখানে হাজীপুর কাঠ-বাজারের ইজারার দরপত্র নেই। এসিল্যান্ড অফিসের নাজির দরপত্র ক্রেতাদের জানান, আমাদের এখানে কোন সিডিউল দেয়া হয়নি।

অবশেষে অনেক তদবির ও চেষ্টার পর ১০ মার্চ মঙ্গলবার জনৈক মনির হোসেন জেলা প্রশাসক কার্র্যালয়ের ডিডিএলজি শাখা থেকে একটি ও সুজিত সূত্রধর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় থেকে টোলচার্ট ছাড়াই একটি দরপত্র ক্রয় করেন। অন্য একজন দরপত্র ক্রেতাকে সিএ কাম ইউডি মো: নাইম নানা অজুহাতে কালক্ষেপন ও অফিস সময় পার করে তাকে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের ডিডিএলজি শাখায় পাঠান। সেখানকার অফিস সহকারী আসমা বেগম অফিস সময় অতিক্রান্ত হওয়ায় সিডিউল বিক্রয় করতে অপারগতা প্রকাশ করেন। দরপত্র ক্রয় করতে আগ্রহী ফখরুল আলম ভূইয়া নরসিংদী সদর এ্যাসিল্যান্ড অফিসে গিয়ে সেখানে দরপত্র না থাকায় ক্রয় করতে পারেননি। এ অফিসে কর্মরত মোহাম্মদ আলী জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় থেকে কোন দরপত্র আমাদের এখানে দেয়নি।

অভিযোগকারীরা জানান, দরপত্র ক্রেতাগণ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে টোলচার্ট চাইলে অফিস সহকারী তা সরবরাহ করতে পারেনি। অফিস সহকারীর পছন্দের ব্যক্তিরা ছাড়া গত বছর দরপত্র ক্রয় করতে আসা লোকজনকে তিনি ফিরিয়ে দিয়েছেন। এবারও একই কাজ করছেন তিনি। টোলচার্ট ব্যতিরেকে দরমূল্য নির্ধারণ সম্ভব নয় বিধায় দরপত্র দাখিলের সময় পুণ:নির্ধারণের আবেদন জানিয়েছেন হাজীপুর কাঠ-বাজারের দরপত্র ক্রেতাগণ।

দরপত্র ক্রেতাগণের মতে হাজীপুর কাঠ-বাজারের বর্তমান ও পূর্বের ইজারাদারগণ টোলচার্ট ব্যতিত তাদের ইচ্ছে অনুযায়ী জোড়-পূর্ব্বক ভোক্তা-ক্রেতা-বিক্রেতাদের কাছ থেকে সরকার নির্ধারিত টোল এর অতিরিক্ত টাকা আদায় করছে। এতে ক্রেতা সাধারণগণ চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে।

এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীরা জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button